কুষ্টিয়া পৌর নির্বাচনে ৩ টিতে নৌকা ও ১টিতে মশাল বিজয়ী

বেলাল খান বেলাল খান

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২:১৪ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৭, ২০২১

শনিবার ১৬ জানুয়ারী কুষ্টিয়া, কুমারখালী, মিরপুর ও ভেড়ামারা চারটি পৌরসভায় শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শনিবার সকাল ৮ টা থেকে ভোট গ্রহন শুরু হয়ে বিকেল ৪ টায় শেষ হয়। প্রতিটি কেন্দ্রে ভোটাররা সুষ্ঠুভাবে ভোট দিতে পারায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। চারটি পৌরসভায় আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী থাকলেও, তিনটি পৌরসভায় নৌকা বিজয়ী হলেও একটিতে পরিবর্তন এসেছে।

কুমারখালী পৌরসভায় ইভিএম পদ্ধতিতে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী নৌকা প্রতীকে কুমারখালী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সামছুজ্জামান অরুন ১০ হাজার ১শ’ ১০ ভোট পেয়ে পুনরায় বিজয়ী হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ধানের শীষ প্রতীকে পৌর বিএনপি যুবদলের সভাপতি আনিসুর রহমান লালু ২ হাজার ৩শ’ ৮৬ ভোট পেয়েছে। এই পৌরসভায় ৯ টি কেন্দ্রে মোট ভোটার ১৮ হাজার ৯ শ’ ৯৮ জন, এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৯ হাজার ৩শ’ ১০ জন, নারী ভোটের সংখ্যা ৯ হাজার ৬শ’ ৮০ জন ছিল।

বাকি তিনটি পৌরসভায় ব্যালট পেপারের মাধ্যমে ভোট প্রদান করেন ভোটাররা । কুষ্টিয়া পৌরসভায় আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী জেলা আওয়ামীলীগের বর্ষীয়ান নেতা বার বার নির্বাচিত পৌর মেয়র আনোয়ার আলী নৌকা প্রতীকে ৬৬ হাজার ৫২ ভোট পেয়ে পুনরায় বিজয়ী হয়েছে, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ধানের শীষ প্রতীকে মজমপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান বশিরুল আলম চাঁদ ১৪ হাজার ৬শ’ ১৩ ভোট পেয়েছে। এই কেন্দ্রে ২১টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৪৬ হাজার ৪শ’ ২৩ জন, নারী ভোটার ৭৫ হাজার ৬শ’ ৩৪ ও পুরুষ ভোটার ৭০ হাজার ৭শ’ ৮৯ ভোটার ছিল। কুষ্টিয়ার মেয়র আনোয়ার আলী ২৫ বছর মেয়র হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন, এবারের নির্বাচনেও তিনি বিজয়ী হওয়ায় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মী সহ বিভিন্ন মহল তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে।

মিরপুর পৌরসভায় আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি হাজী এনামুল হক নৌকা প্রতীকে ১০ হাজার ৪শ’ ৬৮ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছে, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী স্বতন্ত্র প্রার্থী (মোবাইল ফোন) শেখ আরিফ ২ হাজার ৫শ’ ১৫ ভোট পেয়েছে এবং বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ধানের শীষ প্রতীকে রহমত আলী রব্বান ১হাজার ৬শ’ ৭৪ ভোট পেয়েছে। এই পৌরসভায় ৯ ওয়ার্ড মিলে মোট ভাটার ১৭হাজার ৬শ’ ৬৯ জন, পুরুষ ৮ হাজার ৭শ’ ২৪ জন ও মহিলা ভোটার ৮ হাজার ৯শ’ ৪৫ জন।
ভেড়ামারা পৌরসভায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদের প্রার্থী উপজেলা যুবজোটের সহ-সভাপতি আনোয়ারুল কবির টুটুল মশাল প্রতীকে ৮ হাজার ৩২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছে, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী ভেড়ামারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক গত বারের পৌর মেয়র শামিমুল ইসলাম ছানা নৌকা প্রতীকে ৫ হাজার ৬শ’ ৩৪ ভোট পেয়েছে। বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ভেড়ামারা উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক শামীম রেজা ধানের শীষ প্রতীকে ৮শ’ ৪১ ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী সোলায়মান চিশতি নারিকেল গাছ প্রতীকে ১শ’ ১৭ ভোট পেয়েছে। এই পৌরসভায় মোট ভোটার সংখ্যা ১৯ হাজার ৪শ’ ৫ জন, পুরুষ ভোটার ৯ হাজার দুইশত ৭১ ও নারী ভোটারের সংখ্যা ১০ হাজার ১শত ৩৪ জন। প্রতিটি কেন্দ্রের তথ্য নিশ্চিত করেন উপজেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার।

২য় ধাপের এই নির্বাচনে কুষ্টিয়ার চার পৌরসভায় দিনব্যাপী শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়। ভোট গ্রহনের শেষ মুহুর্তে মিরপুর পৌরসভার একটি কেন্দ্রে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় মোবাইল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী শেখ আরিফ এর উপর হামলা করে এবং তাকে আহত অবস্থায় মিরপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এবিষয়ে শেখ আরিফের সমর্থকেরা দাবী করে বলেন, নৌকা প্রার্থীর লোকজন আরিফকে মারধর করেছে। পরে বিষয়টি সম্পর্কে বিজয়ী মেয়রকে অবগত করলে উক্ত ঘটনার বিষয়ে তিনি অবগত ছিলেন না বলে জানান। ঘটনার বিষয়ে মিরপুর ওসি গোলাম মোস্তফা জানান, ভোট গ্রহনের প্রায় শেষ পর্যায়ে একটি কেন্দ্রে বির্তকিত ঘটনা ঘটে, এতে বড় ধরনের কোন ক্ষতি হয় নাই, দ্রুত সময়ের মধ্যে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
এবারের এই পৌরসভার ভোট সুষ্ঠু নিরপেক্ষ হওয়ায় জনগন তাদের ভোটের মাধ্যমে পরিবর্তন এনেছে ভেড়ামারা পৌরসভায়। দিনব্যাপী প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে ঘুরে দেখা গেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সর্তক অবস্থানে ছিল, ভোটারদের কোন অভিযোগ ছিলো না, শান্তিপূর্ণভাবে তারা তাদের ভোট দিতে পেরেছে।

তবে কুষ্টিয়া পৌরসভার মধ্যে দুটি ভোটকেন্দ্রে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে কিছু অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটে তবে বড় ধরনের কোন বিশৃঙ্খলা দেখা যায় নাই।